লিটন হলেন শ্রীলঙ্কান, মিরাজ আফগান!

ভুল তাহলে শুধু বাফুফে নয়, আইসিসির মতো সংস্থাও বুঝি করে! নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে বানান ভুল করে বাফুফে সম্প্রতি শিরোনামে এসেছিল সংবাদ মাধ্যমের। এবার আইসিসিও আলোচনায় এলো সংবাদে গুরুতর এক ভুল করে। আসবেই না কেন? লিটন দাস আর মেহেদি হাসান মিরাজের জাতীয়তাই যে বদলে দিয়েছে রীতিমতো! সিরিজে দারুণ পারফর্ম করা লিটনকে বানিয়ে দেওয়া হয়েছে শ্রীলঙ্কান, আর মিরাজকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো ‘রশিদ খানের সতীর্থ’ হিসেবে! 


ভুল করা মানুষেরই স্বভাব। বিশ্বের বড় বড় সব সংবাদ মাধ্যমে ভুল হরহামেশাই হয়। তবে আইসিসি বলেই ভুলটা আলোচনায় এসেছে বেশি।

আজ দুপুরে এক বিবৃতিতে চোখে পড়ে এই ভুল। শুরুর দিকে অবশ্য ঠিকঠাকই ছিল তাদের বিবৃতি। আইসিসি ভজকট পাকিয়েছে শেষে এসে। মিরাজকে পাঠিয়ে দিয়েছে রশিদ খানের দলে। 

সেই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ছয় ধাপ এগিয়ে এসে রশিদ খান ৯ নম্বর অবস্থানে উঠে এসেছেন। সিরিজ শেষ করে সতীর্থ মেহেদি হাসান মিরাজ নেমে গেছেন দুই ধাপ, আছেন ৭ম অবস্থানে।’ সেটা নাহয় ‘খেয়ালের ভুলে’ হয়ে গেছে। ‘সতীর্থ’ একটা শব্দই তো মাত্র!

পরের ভুলটা হলো আরও হাস্যকর। বাংলাদেশ-আফগানিস্তান সিরিজের শীর্ষ রান সংগ্রাহককেই যে বানিয়ে দেওয়া হয়েছে ‘শ্রীলঙ্কান’! বলা হলো, ‘বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজে সর্বোচ্চ রান করেছেন শ্রীলঙ্কার লিটন দাস। তাতে তিনি উঠে এসেছেন ব্যাট হাতে ক্যারিয়ার সেরা অবস্থান ৩২-এ।’

তবে এর কিছু পরেই ভুল ধরতে পেরেছে আইসিসি, সেই বাক্যটা পুরোপুরি মুছেই দেওয়া হয়েছে। শেষ ভুলটা, অর্থাৎ লিটনকে শ্রীলঙ্কান বলাটাকে শুধরে নিয়েছে আইসিসি। তবে এই প্রতিবেদন লেখার আগ পর্যন্ত মিরাজ রয়ে গেছেন ‘রশিদ খানের দলেই’!

মেরাজুল কনক

আমি মেরাজুল ইসলাম, একজন বাংলাদেশী ব্লগার। ব্লগিং এর পাশাপাশি আমি ওয়েবসাইট ডিজাইন, কন্টেন্ট রাইটিং, কাস্টমাইজ সহ ওয়েব রিলেটেড অনেক কাজ করি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন