ব্যালন ডি’অরের তালিকা দেখে বিস্মিত হয়েছিলেন সালাহ

গত বছর সপ্তম ব্যালন ডি’অর জিতেছেন লিওনেল মেসি। এই পুরস্কার জেতার তালিকায় সপ্তম স্থানে ছিলেন মোহাম্মদ সালাহ। যেটা তার কাছে ছিল একেবারেই অপ্রত্যাশিত। তার বিশ্বাস, পুরো বিশ্বেই কেউ ভাবেননি এমনটা। 

বছরের শেষদিকে লিভারপুলের হয়ে দারুণ ফর্মে ছিলেন তিনি। ব্যালন ডি’অরে সপ্তম স্থানের সঙ্গে ফিফার বর্ষসেরা একাদশেও জায়গা পাননি সালাহ, তবে এতে ষড়যন্ত্র তত্ত্ব দেখেন না তিনি। ডিএমসি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন চলতি বছর মিশরকে আফকনের ফাইনালে তোলা এই তারকা।

তিনি বলেছেন, ‘এটা আমাকে বিস্মিত করেছিল (ব্যালন ডি অরের তালিকায় উপরে না থাকা), কিন্তু এখানে আমার কিছুই বলার নেই। পৃথিবীর কেউই আশা করেনি আমি সপ্তম হবো কিন্তু এটা হয়েছে।’

ফিফার বর্ষসেরা একাদশেও জায়গা হয়নি সালাহর। এ নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমি কোনো ষড়যন্ত্র তত্ত্ব খুঁজবো না। কিন্তু এখানে হয়তো ভুল পছন্দ হয়েছে। এখনও অনেক দেশ আছে যারা ফুটবল জ্ঞানের দিক থেকে জনপ্রিয় নয় এবং পিছিয়ে আছে। আমি জানি না তাদের পছন্দ কীসের ভিত্তিতে হয়েছে কিন্তু ষড়যন্ত্র তত্ত্বে বিশ্বাস করি না।’ 

‘আমার মনে হয় না ফিফার বাছাইয়ে ব্যক্তিগতভাবে আমার বিপক্ষে বিশেষ কিছু আছে। কিন্তু এই বাস্তবতাটা আমরা দেখেছি।’

তবে সমর্থকদের ভালোবাসায় খুশি তিনি, ‘মানুষের আমাকে নিয়ে ইতিবাচক মন্তব্য ও তাদের আশাকে ব্যাখ্যা করার মতো শব্দ আমার জানা নেই। যদি আজকে আমি মারা যাই, তাহলে যা অর্জন করতে চেয়েছি তার অনেক কিছু অর্জনের পর আমার মৃত্যু হবে। সবাই বুঝতেও পারে না আমি কতটা খুশি যখন জাতীয় দলের হয়ে খেলি। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তুলতে পারাটা আমার জন্য সম্মানের।’

নিজের জীবনের সেরা ম্যাচ নিয়ে সালাহ বলেছেন, ‘আমার জীবনে খেলা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হচ্ছে কঙ্গোর বিপক্ষে ২০১৮ বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটা। দলকে জেতানো গোলটা করার পর আমার আনন্দ প্রকাশ করার মতো না।’

মেরাজুল কনক

আমি মেরাজুল ইসলাম, একজন বাংলাদেশী ব্লগার। ব্লগিং এর পাশাপাশি আমি ওয়েবসাইট ডিজাইন, কন্টেন্ট রাইটিং, কাস্টমাইজ সহ ওয়েব রিলেটেড অনেক কাজ করি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন