স্বপ্নের মাইলফলকে সাকিব

প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৪০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁলেন সাকিব আল হাসান। আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) মিনিস্টার ঢাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের উইকেট নিয়ে স্বপ্নের ঠিকানায় পৌঁছে যান বরিশাল অলরাউন্ডার। এমন ম্যাচে সাকিবের দল হেরে গেছে ৪ উইকেটে।

এভাবে নিশ্চয়ই মাইলফলক স্পর্শ করতে চাননি সাকিব। দল হারায় তাঁর ব্যক্তিগত অর্জনটিও তাই কিছুটা আড়ালে পড়ে গেছে। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচে এসে প্রথম হারের স্বাদ পেল বরিশাল। নিজের শেষ ওভারে এসে প্রত্যাশিত উইকেটটি পেয়েছেন সাকিব। ঢাকার ইনিংসের ১৮তম ওভারের তৃতীয় বলে মাহমুদউল্লাহকে ডোয়াইন ব্রাভোর ক্যাচে পরিণত করেন তিনি। ততক্ষণে কাজের কাজটা ঠিকই সেরে ফেলেছেন ঢাকার অধিনায়ক।

মাহমুদউল্লাহর ক্যাচটি যিনি নিয়েছেন সেই ব্রাভো স্বীকৃতি টি-টোয়েন্টির সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। বিশ্বজুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলা ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার ৫১৪ ম্যাচে ৫৫৫টি উইকেট নিয়েছেন। পাঁচ’শ উইকেটের ক্লাবে নিঃসঙ্গ তিনি। তবে ৪০০ উইকেটের এলিট ক্লাবে সাকিবকে সঙ্গী হিসেবে পেলেন ব্রাভো। পঞ্চম বোলার হিসেবে ৪০০ উইকেটের গণ্ডি স্পর্শ করেছেন বরিশাল অধিনায়ক। ৩৫৩তম ম্যাচে এসে মাইলফলকে পৌঁছেছেন সাকিব।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্রুততম ৪০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ডটা অবশ্য রশিদ খানের। আফগান স্পিনারের লেগেছে ২৮৯টি ম্যাচ। এই মুহূর্তে ৩০০ ম্যাচে ৪২০ উইকেটের মালিক রশিদ। ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার সুনীল নারাইনকে ৪০০ উইকেটের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে ৩৬২ ম্যাচ পর্যন্ত; ব্রাভোর লেগেছে ৩৬৪ ম্যাচ। দ্বিতীয় দ্রুততম শিকারি দক্ষিণ আফ্রিকান স্পিনার ইমরান তাহির। ৩২০ ম্যাচ ম্যাচে ৪০০ উইকেটের দেখা পান তিনি।

স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ পাঁচ শিকারি: 

  • ডোয়াইন ব্রাভো: (৫১৪ ম্যাচ ৫৫৫ উইকেট) 
  • ইমরান তাহির: (৩৪৪ ম্যাচ ৪৩৫ উইকেট) 
  • সুনিল নারাইন: (৩৮২ ম্যাচ ৪২৫) 
  • রশিদ খান: (৩০০ ম্যাচ ৪২০) 
  • সাকিব আল হাসান: (৩৫২ ম্যাচ ৪০০ উইকেট)

মেরাজুল কনক

আমি মেরাজুল ইসলাম, একজন বাংলাদেশী ব্লগার। ব্লগিং এর পাশাপাশি আমি ওয়েবসাইট ডিজাইন, কন্টেন্ট রাইটিং, কাস্টমাইজ সহ ওয়েব রিলেটেড অনেক কাজ করি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন