টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে প্রথমবার সাতে বাংলাদেশ

ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টিতে একের পর এক সাফল্য পাচ্ছে বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও শুরুটা দারুণ করেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে গতকাল বুধবার কিউইদের বিপক্ষে ৭ উইকেটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। আর এই জয়ে আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে এক লাফে তিন ধাপ এগিয়ে সাতে উঠেছে মাহমুদউল্লাহর দল।


ঘরের মাঠে সংক্ষিপ্ত সংস্করণে গত দুই বছর ধরেই দুর্দান্ত খেলছে বাংলাদেশ। এবার সেটার পুরস্কার হিসেবে র‍্যাঙ্কিংয়েও উন্নতি করেছে মাহমুদউল্লাহর দল। ধারাবাহিক সাফল্যে ২৩৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে  সাত নম্বরে উঠে এসেছেন সাকিব-মুশফিকরা। কিউইদের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজ শুরু আগে অবশ্য ২৩৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে দশে ছিল বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো কিউইদের হারিয়ে ৪ রেটিং পয়েন্ট যোগ হয়েছে। তাতেই তিন ধাপ এগিয়ে সাতে উঠেছে বাংলাদেশ।

মাহমুদউল্লাহরা পেছনে ফেলেছে শ্রীলঙ্কা (২৩৫), আফগানিস্তান (২৩৬) ও ওয়েস্টে ইন্ডিজকে (২৩৪)। বাংলাদেশের ঠিক ওপরে থাকা অস্ট্রেলিয়ার রেটিং পয়েন্ট ২৪০ আর দক্ষিণ আফ্রিকার ২৪৬। ২৭৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে সবার ওপরে আছে ইংল্যান্ড।

বাংলাদেশ যদি কালও নিউজিল্যান্ডকে হারায় ২৪১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে মাহমুদউল্লাহর দল অস্ট্রেলিয়াকে টপকে উঠে আসবে ছয়ে। বাংলাদেশ যদি সিরিজটা ৪-০ করে ফেলে, ২৪৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে তখন দক্ষিণ আফ্রিকাকে টপকে উঠে যাবে পাঁচে। সিরিজে কিউইদের ধবলধোলাই করলেও র‍্যাঙ্কিংয়ে পাঁচেই থাকবে বাংলাদেশ। তবে রেটিং পয়েন্ট হয়ে যাবে তখন ২৪৮। 

নিউজিল্যান্ড যদি সিরিজের বাকি চারটি ম্যাচই জেতে বাংলাদেশ তবেই আগের জায়গায় দশে ফিরতে পারে। যেভাবে সিরিজটা শুরু করেছেন সাকিবরা, সেটি হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণই। সব মিলিয়ে টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে বড় লাফ দেওয়ার এটাই সুবর্ণ সুযোগ বাংলাদেশের।

মেরাজুল কনক

আমি মেরাজুল ইসলাম, একজন বাংলাদেশী ব্লগার। ব্লগিং এর পাশাপাশি আমি ওয়েবসাইট ডিজাইন, কন্টেন্ট রাইটিং, কাস্টমাইজ সহ ওয়েব রিলেটেড অনেক কাজ করি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন